সোমবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

মাইনরিটি ~ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়


 (পরশুরামের কুঠারটি ধার করেছি) 

-          প্রাতিঃকালে ব্যোমি হয়?

-          আজ্ঞে … না তো

-          হয় হয় ZIনতি পারোনা

-          সায়ান্নে প্যাটে ব্যাথা হয়?

-          আজ্ঞে তাও তো ...

-          হয় হয় ZIনতি পারোনা, চক্ষু ডুম্বুরাইয়া যায়। তা বাবা, অ্যাালোপ্যাথ ছেড়ে এই বুড়ো কবরেজের কাছে কেনো?

-          আজ্ঞে সে কি আর যাইনি? অ্যালোপ্যাথ, হোমিওপ্যাথ সব করে ফেলিচি কবরেজ মশায়

-          তারা কি বলে?

-          আজ্ঞে একজন বললে স্ট্র্যাঙ্গুলেটেড গ্যাংলিয়া, আর একজন বললে আমার মাথায় ডিফারেন্সিয়াল ক্যালকুলাস হয়েছে, তাই এই চিন্তা আর ভয়

-          তা ভয়ডা কিসের শুনি?

-          আজ্ঞে কবরেজমশায়, সব সময়েই মনে হয় আমি চাপে।  আমাকে যেন পিষে ফেলছে, দম নেবার জায়গা নেই। আমি... আমি সংখ্যালঘু

-          আপনে কি ইয়ে? অবিশ্যি দাড়ি আর টুপি দেখে সেটাই মনে হয়......

-          আজ্ঞে হ্যাঁ কবরেজমশায়, মনে হয়, আমার সবাই আমাকে সন্দেহের চোখে দেখে, টেররিস্ট ভাবে

-          তা আপনের কি করা হয় মিঞা সায়েব?

-          আজ্ঞে আমি রসুলপুর প্রোমোদাসুন্দরী প্রাইমারি ইস্কুলে টিচারি করে...

-          ছেলে মেয়ে কটি?

-          আজ্ঞে আমার তো ওই একটিই...... এইবার এইচ এস পাশ করল, ফার্স্ট ডিভিশনে

-          ট্যাহা পহায় চলে?

-          চলে না কবরেজমশায়, তার ওপর এই মনের ব্যামো, অ্যালোপাথি করাবো, সে সামর্থ কই? অবসরের পর কি করব জানিনা...বাড়িতে আরো লোক জন, আমি একলা চাকুরে...

-          বাড়ি কি নিজের?

-          আজ্ঞে ভাড়া বাড়ি, নিজের করার সামর্থ্য হলো কই? ছেলেকে পড়াতেই......

-          আপনে সইংখ্যালঘু এইটে কে কইলো মিঞা সায়েব?

-          মানে, কবরেজমশায়, আমি তো, আমি তো......

-          ট্যাহা পহা নাই, নিরাপত্তা নাই, চাকরি আছে বটে, কিন্তু তাতে চলে না, পোলারে পড়াইবেন, সে সামর্থ্য নাই...

-          না, মানে আমি তো ঠিক সেই অর্থে খেতে না পাওয়া গরীব মানুষ না

-          ইশকুল বন্ধ হইলে, কি তাড়ায়ে দিলে খাবেন কি? যাবেন কই?

-          কোনো চুলো নেই যাবার কবরেজ মশায়, তার ওপরে এই মনের ব্যামো

-          কিস্যূ হয় নাই আপনের। খামোখা আইছেন এহানে। আপনি মাইনরিটি না

-          মাইনরিটি না?

-          আইজ্ঞা না

-          তাহলে?

-          অই যে, ট্যাহা পহা নাই, সরকারে পকেট ফাঁক করতাসে, এই ট্যাক্সো, ওই কর, নোটবন্দি, তার ওপর জমানো কিস্যু নাই, জমি নাই, কাল কি খাইবেন চাকরি গেলে জানা নাই, আপনি সংখ্যালঘু কয় কেডা মিঞা সায়েব? আপনে হইলেন এই দ্যাশের সংখ্যাগুরু, আপনেরা হইলেন নব্বুই ভাগ। আর যাদের আছে, তারা হইল দশ ভাগ। কি বুঝলেন?

-          কথাটা ভুল বলেন নি । তবে......

-          আবার তবে, টুপি দাড়ি আপনের পছন্দের, আপনের ইমানের, ইমানকে দাঁড়ি পাল্লায় চড়িয়ে কম বেশী মাপনের কি দরকার কন দেহি? বরং জোর গলায় কয়েন, আপনি হইলেন সেই সংখ্যাগুরু যাঁদের বাড়ি আজ আছে, কাল নাই। কাল কি হবে , জানা নাই। দেখবেন, মনের ব্যামো উধাও। এক্কেবারে উধাও

-          তাহলে তো ... কবরেজ মশায়...

-          আবার কি হইল?

-          আপনার কথায় বেশ বল পাচ্ছি।

-          পাইবেনই তো। এবার আপনাদের এই নব্বুইজনের বলটা ওই মাইনরিটি ১০ জনেরে একটু টের পাওয়ান দেহি......