বুধবার, ২৯ এপ্রিল, ২০১৫

​বিজয়োৎসব ~ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়

আমাদের মুখ কালচে কালচে – মাটির মত
মাঠে ময়দানে, পুজো-পার্বনে খুশিরা ডাকতো
বারোয়ারি খানা, ভোগের খিচুড়ি, তপ্ত সুবাস
ছোট্ট পাড়াটা আরো ছোটোদের কান্না ঢাকতো


দুধে ভাতে যারা, একসাথে যায় স্কুলে মন্ডপে
ব্যথা পেলে কাঁদে, মাস্টার ঘরে অঙ্ক কষায়
জন্মদিনের বড় কেক কাটে, বড় দিন এলে
দূর থেকে দেখি আমরা আলাদা ওঠা ও বসায়

আমাদের পাড়া খেটে খাওয়া মুখ আঁকিবুকি কাটা
মাটি কাটে কেউ, বস্তা চাপায়, মোট বয়ে চলে
সূর্য্য ঢললে পেটের আগুন, আগুন জ্বালায়
খিদের ছন্দে নির্বাক গান গাইছে সকলে

তুমুল বাতাস বিলি কাটে জল হেমন্ত হাওয়া
কত চিঠি জমে ডাকের বাক্সে ঠিকানা বিহীন
ডাক দিয়ে যায় অচেনা অজানা স্লোগান মিছিল
লাল রঙ ছাড়া এপাড়াকে লাগে বড় বেরঙীন

"আমরা আলাদা, ফুলে ফুলে মধু অনেক আসছে
কেউ জানবে না, চুপি চুপি গিয়ে ছাপটা মারিস"
রাত্রে বাইকে বন্দুকবাজ পাড়াটা কাঁপায়
ভোর হয়ে গেছে বুথে চল সব, যে আগে পারিস

কেড়েই নিচ্ছে আরো ভোট আরো, আরো অধিকার
যেমন আমার শিকড়, আমার খিদের জ্বালা
মাটি কি জেনেছে, আমাদের মুখ এখনো কালচে?
রক্তের সাথে মিশছে শুকনো মুখের লালা

শপথ বলতে শক্ত চোয়াল, মুঠো করা হাত
স্বজন বলতে খেটে খাওয়া মুখ, আর কলরব
আমরা বলতে আমি ও আমার ঝান্ডাটি লাল
আগামী বলতে আমাদের জেতা বিজয়োৎসব