শুক্রবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৪

হাসি ~ আশুতোষ ভট্টাচার্য্য

কেউ হাসে খিলখিল, কেউ হাসে মেপে
অকারনে হাস যদি জ্যাঠা যাবে ক্ষেপে;
নামে কিবা আসে যায় হাসে তাই হাঁস
কেউ হাসে শত্রুকে দিয়ে কচি বাঁশ;
কেউ হাসে ফিকফিক অঙ্কের ক্লাসে
নিয়মিত হাসি চলে, ঠোকাঠুকি গ্লাসে;
ঘোড়াতেও হাসে বুঝি আজগুবি শুনে
পাঁজি দেখে হাসে কেউ, হাচিঁ দেয় গুনে;
হাসিসের নেশা হলে সারারাত ধরে
অবিরাম হাসে কেউ সিদ্ধির ঘোরে;
কারো হাসি কোলগেট, রোজ দাঁত মেজে
বড় পিসি হাসে কেন পুঁটিমাছ ভেজে?
পুলিসেও হাসে দেখ যদি পায় ঘুষ
চার্চিল, হিটলার হাসে মোদী, বুশ;
হাসত না জ্যোতি বোস, কানাঘুষো শুনি,
শুনেছ কি হাসতেন দুর্বাসা মুনি?
নেতা হাসে দেঁতো হাসি, ভয় দিনেরাতে
হাসিখুশি থাকে যারা আছে দুধেভাতে;
দেখলেই বোঝা যায় বাড়ি হাসিমারা
চা বাগানে সর্বদা হাসিতেছে তারা;
জাপানের ফুরসোয়া খুক খুক কাশে
আমি ভাবি কি বিপদ, এত কেন হাসে?
সর্বদা হাসে কেউ, হেসে গড়াগড়ি
কেউ হেসে কুটিপাটি, সাথে হাসে ভুঁড়ি;
চীনাম্যান হাসে সুখে, দুটি চোখ বুজে
Laughআlaughই কর কেন, হাস নিজে নিজে;
ক্লাবে গিয়ে হাসি শেখে আট থেকে আশি
বিয়ে হলে প্রেমিকার হাসি হয় বাসি;
হাসিনার হাসি নাকি দুর্লভ ভারী
মেসো হাসে খেয়ে লুচি বাটি চচ্চড়ি;
বাঁকা হাসি হাসে কেউ হাসি রাখে চেপে
ক্লাসে হাসাহাসি দেখে স্যার যান ক্ষেপে;
কারো কারো শেষ হাসি, কান্নায় মেশে
গোটা পাঠা খেয়ে কেউ হাসে অক্লেশে;
নায়িকার হাসি নাকি ভয়ানক দামী
হেসে হেসে ঘুঁটে দিত শিবানীর মামী;
স্বপ্নের হাসি যদি টোল পড়ে গালে
হা হা করে হাস তুমি কোন আক্কেলে?
সিনিয়ার সিটিজেন হাসে বিনা দাঁতে;
কাকা কাকী এতো হাসে কেন মাঝরাতে?
ন্যাচারাল হাসি থাকে হেরিডিটি, জিনে
অফিসেতে হাসি নাকি নিষিদ্ধ চীনে;
হাঁসফাঁস করে কেউ হেসে ক্রমাগত
মোনালিসা হাসি হেসে হন বিখ্যাত;
কেউ খুন হেসে,কেউ হাসে বোকাবোকা
প্যান্টেতে হিসি করে হাসে কচিখোকা;
শিশু হাসে আনন্দে, অনাবিল হাসি
মিঠে রোদ, প্রজাপতি বড় ভালোবাসি;
মোক্ষম কত হাসি, রয়ে গেল তবে
পড়ে যদি ভালো লাগে, ফের দেখা হবে।।