শনিবার, ৯ আগস্ট, ২০১৪

ইলিশের বিরিয়ানি ~ প্রতীক দাস

বিরিয়ানি আর ইলিশ! কেউ আগে ভেবেছিল দুই প্রান্তের দুই প্রিয় খাদ্য একসাথে বিয়ে করে ইলিশের বিরিয়ানি হলে কেমন হয়? চেষ্টা করে দেখুন! অসম্ভব ভাল!


বিরিয়ানির চাল ভিজিয়ে রাখুন আধ ঘন্টা থেকে এক ঘন্টা। 

আলাদা করে একটা হাঁড়ি তে জলের মধ্যে নুন বেশি করে দিয়ে, আর এলাচ, দাড়চিনি, তেজপাতা দিয়ে ফোটান। এই জল টা তে কতটা নুন দেবেন? যতটা দিলে সমুদ্রের জলের মত নোনতা হয়, ঠিক ততটা। যখন টগবগ করে ফুটবে, তখন চাল দিয়ে দিন। চাল গলে যাওয়ার আগে একটু শক্ত শক্ত থাকতে নামিয়ে ফেলুন। ফ্যান টা ফেলে দিন। ভাত যেন একদম ঝুরজুরে হয়। 


ইলিশ মাছ কয়েকটা পিস আধঘন্টা আগে নুন, কাঁচা লংকা বাটা, অল্প একটু সাদা তেল, বেশি করে ঘী দিয়ে মাখুন। মাখার পরে দশ পনের মিনিট রেখে দিন। কড়াই তে সাদা তেল ৫০ মিলি (এক টেবিল চামচ সাদা তেল) ৭৫ মিলি ঘী এক সাথে মিশিয়ে গরম করুন। গরম হয়ে গেলে মাছ গুলো ছেরে দিন। খুন্তি দিয়ে এপিঠ ওপিঠ করে নিয়েই দুধ ঢেলে দিন। ( ৫০০ গ্রাম মাছে ৫০০ মিলি লিটার দুধ)। ভাল করে ফুটিয়ে নিন, ফোটার পরে যখন অর্ধেকের একটু কম হবে দুধ, তখন নামিয়ে নিন।  

অন্য একটা হাঁড়ি নিন। ভিতরের ভাল করে ঘী মাখিয়ে নিন। ঝুরঝুরে ভাগ টা কে এই হাঁড়ি তে ঢেলে দিন। ভাতটাকে হাঁড়ির মধ্যে সমান করে দিয়ে মাছ গুলো ওপরে সাজিয়ে দিয়ে দিন। আর মাছ তৈরী করার সময় যে ঝোলটা থাকবে সেটা হাঁড়ির মধ্যে ছড়িয়ে দিন এই ভাতের ওপরে। গ্যাসে বসিয়ে সিম এ (কম ফ্লেম এ) করে ৫ - ৭ মিনিট রাখলেই হয়ে যাবে। দেখবেন যেন এই হাঁরির ঢাকনা টা ভাল করে চাপা দিয়ে বন্ধ থাকে। এই শেষ টা হল সেই যাকে বলে দম দেওয়া। 

আর কি, খেয়ে নিন গরম গরম!