রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৪

লোভে লাভ ~ প্রকল্প ভট্টাচার্য

তারপর একসাথে অনেকগুলো সোনার ডিম পাবে ভেবে লোকটা তো হাঁসের পেটটা ফেলল কেটে। কোথায় কী! মাঝ থেকে হাঁসটা গেল মরে।
'লোকটা' আবার কি! তার তো একটা নাম তো থাকা উচিৎ! আচ্ছা, ধরা যাক তার নাম ছিল ভুতো।

ভুল কাজ করবার পর যা হয়, মাথা চাপড়ানি, হায় হায়। কথামালার গল্পের সারমর্ম, উপদেশ। সে সব চুকে গেলে মাথায় চাপল শয়তানি।
পাড়ার হাবু অনেকবার তার কাছ থেকে হাঁসটা কিনতে চেয়েছিল। এই সুযোগ। ভুতো মুখচোখ মুছে ভালমানুষটি হয়ে হাবুর বাড়ি গিয়ে বলল, 'ভাই রে, হঠাত কিছু টাকার দরকার, ভাবছি ঐ সোনার ডিমপাড়া হাঁসটা বেচে দিই। তাই তোর কাছে এলুম। হাজার পাঁচেক টাকা হলেই আমার চলবে। তুই যদি রাজী না হোস, তাহলে ও পাড়ার বঙ্কুর কাছে যাই।'
হাবুর তো হাতে স্বর্গ! পাঁচ হাজার টাকায় এস ডি পি এইচ! (মানে সোনার ডিম পাড়া হাঁস। আজকাল আবার সব শর্টে শাঠ্যং তো!) তক্ষুণি সে এটিএম থেকে টাকা তুলে এনে ভুতোকে বলল, 'আমিই কিনব। কিন্তু হাঁসটা কই?'

-'সঙ্গে আনিনি, যদি তুই রাজী না হোস। আমার বাড়ীতেই আছে, গিয়ে নিয়ে নে! আমি একটু জরুরি কাজে চললুম। আসি ভাই?' 

আর আসে! হাতে টাকা পেয়ে ভুতো সঙ্গে সঙ্গে সামনের পগারটা পার হয়ে সেই যে গেল, আর পাক্কা একটা বছর গ্রাম মুখো হল না। 

লোভে পাপ হল, পাপে লাভ। গপ্পোটা কিন্তু এখানেও শেষ নয়।

বছর ঘুরলে ভুতোর মনটা খচখচ করতে লাগল। মরা হাঁস কিনে হাবু ঠিক কেমন মুরগি হলো? তার নামে মামলা ঠুকেছে কি? নিদেনপক্ষে ফেসবুকে আপডেট? শেষমেষ যা থাকে কপালে ভেবে সে চলল গ্রামে ফিরে।

হবি তো হ', রাস্তাতেই হাবুর সংগে দেখা। ভুতোকে দেখে সে তার বাইক থামিয়ে দৌড়ে এল। মারবে নাকি! না না, 'ওরে ভুতো রে, কতদিন দেখা হয় নি!' বলে জড়িয়ে ধরে, টেনে নিয়ে গেল পাশের রেস্টুরেন্টে। চা, মামলেট অর্ডার দিল। দিব্যি খোশমেজাজ! ভুতো তো হতভম্ব, পাঁচ হাজার টাকার শোকে হাবুর মাথাটাই বিগড়েছে নাকি!

-তারপর, কী খবর তোর! জরুরি কাজ বলে সেই যে চলে গেলি...
-হ্যাঁরে, তোর মনে আছে, সেই হাঁসটা...
-মনে থাকবেনা কেন! কিনলুম তো তোর কাছ থেকে! আর তার জন্যেই তো আমার এত উন্নতি!

-কী বলছিস! ওটা তো মরে গেছিল!
-হ্যাঁ তো। তোর বাড়ী পৌঁছেই বুঝলুম যে ঠকে গেছি। তখন আর কান্নাকাটি করে কী লাভ! ভেবেচিন্তে পেপারে একটা অ্যাড দিলুম, একশো টাকার লটারি, ফার্স্ট প্রাইজ এস ডি পি এইচ!
-তারপর? টিকিট বিক্রি হলো?
-হবে না আবার! দু-তিনটে গ্রাম মিলিয়ে পাঁচশো টিকিট বিক্রি! নগদ পঞ্চাশ হাজার টাকা এল হাতে!
-সেকিরে! লটারির দিন কী করলি?
-কী আবার করব! লটারি করলুম! নাম উঠল নবগ্রামের পঞ্চার!
-পঞ্চা কে কী বললি?
-বলার কী আছে! লটারি জিতেছে, বললুম হাঁসটা নিয়ে যা!
-মরা তো!
-হ্যাঁ, পঞ্চাও বলল, হাঁসটা মরা তো! বললুম, আমি তো বলিনি জ্যান্ত!
-পঞ্চা রাগ করে নি?
-কেন করবে! ও মরা হাঁস নিতে রাজী হলো না দেখে ওর একশো টাকা ওকে ফিরিয়ে দিলুম, আর সেদিন আমাদের বাড়ি ডাক রোস্ট হলো!! হ্যাঁ, তুই কিন্তু আজ দুপুরে আমার বাড়ি খাবি! তোরই জন্যে তো সব পেলুম!! 

(সারমর্মঃ  লোভ, পাপ, অন্যায়, এ কলিতে সবই মায়া...
সত্য কেবল মার্কেটিং, মার্কেটিং, আর মার্কেটিং, ভায়া!!)