শুক্রবার, ৩ জানুয়ারী, ২০১৪

​বাৎ শরিক ~ অমিতাভ প্রামাণিক

মেয়েটা মাত্র ষোল বছরের, বাড়ি মধ্যমগ্রাম -
মুদ্রাস্ফীতি, তবুও এদেরই সবচেয়ে কম দাম।

সে এবং তার মত আর যারা বেড়ে উঠছে গোকুলে,
পথ চলা বড় কষ্ট তাদের, কে কোথায় নেবে তুলে!
কাগজে লিখছে পৃথিবী খুলছে, ওরা দেখে বন্ধ –
আকাশে উড়ছে চিল শকুনেরা, কখন মারবে ছোঁ।
ওদের কোথাও যাবার আছে কি? আশ্রয় আছে আইনে?
শেয়ালে শকুনে ফের ঠোকরায়, ফেলে রাখে রেললাইনে।
তুলসীপ্রদীপ জ্বালার আগেই ছেড়ে যেতে হয় গাঁ,
এ দেহটা ওরা ছুঁয়ে দিয়েছে যে, এ দেহে হাজার ঘা!

এ পাড়াতে থ্রেট, অপমান, খোঁজো অন্য আর এক কলোনি –
দূষিত বাতাস সেখানেও ছোটে, বলে, এসব তো বলো নি!
তাকে নিয়ে ফের কাটাছেঁড়া করে পাড়ার টাইমকল;
বাড়িওলা বলে, এই মেয়েদের রাখা যায় নাকি, বল!
কোথায় যাবে সে, কোনখানে মেলে এতটুকু আশ্রয়?
শেয়াল-শকুন, নাকি প্রতিবেশী, কোনটাকে কম ভয়?
কী ভুল করেছে, এ বিষ ছড়ানো, এ সব কাদের পাপ?
আগুনও এদের চেয়ে আরও বেশি ছাড়ে নাকি উত্তাপ!

মেয়েটা মাত্র ষোল বছরের, বাড়ি মধ্যমগ্রাম,
নতুন বছর দেখতে পেলো না, মুছে গেল তার নাম।

৩ জানুয়ারি ২০১৪