শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৩

সন্নোযুগ ~ অমিতাভ প্রামানিক

কেষ্টঠাকুর, তার যে মাসি, তার শ্বশুরের ভাগনেবৌ
দ্বাপরে খুব মুখোশ পরে পুরুলিয়ায় নাচতো ছৌ।
সে নাচ দেখে বীর হনুমান ঢাকায় গিয়ে পান্তাভাত
শুঁটকিমাছের সঙ্গে খেয়ে করলো ভীমের মুণ্ডুপাত।
কী আর করা, ভীমবাবাজি ঘুরিয়ে দুপাক গদাই তার
দেখলো বিদুর চাইছে টাকা, ধুত্তেরিকা, সদাই ধার!
কৃষ্ণকে সে বলল, শোনো, আর যা করো রাত্রিদিন
কলম্বোতে কলকাঠিটা নাড়লে হবে অন্তরীণ।
সিংহলেতে কুম্ভকরণ দিচ্ছিল ঘুম বছরভর,
থার্মোমিটার তার বগলে দিতেই দ্যাখে হাজার জ্বর!
বদ্যি ডাকো, ওষুধ লে আও, কোথায় ভরত-শত্রুঘন্‌?
সব শকুনির উকুন বেছে দিচ্ছে চালান দু'দশ টন।


এই মরেচে, এই স্টোরিখান বেবাক এমন যাচ্ছেতাই –
ঠিক যে রকম বাংলা-নেতা রাজ্য চুষে খাচ্ছে, হায়!