বুধবার, ১৫ আগস্ট, ২০১২

আজ স্বাধীনতা ~ অরুণাচল দত্তচৌধুরী

স্বাধীনতা মানে ... একদিন ছুটি, বিকেলে শপিং ... দুপুরে মাংস। 
স্বাধীনতা দিয়ে মাপব ম্যাপএর সকল দ্রাঘিমা আর অক্ষাংশ! 
বিদেশীরা গেছে। বাতাস শিখল কালো মালিকের হুকুমশব্দ। 
হাহাকার থাক গ্রামে অরণ্যে, আমার গ্রীষ্ম এসি আরব্ধ! 

আজ স্বাধীনতা, ময়লা কুড়োনো ছেলেটার মনে বড় আনন্দ ... 
পাওয়া যাবে বহু কাগজ পতাকা, সাথে ফুলমালা, গোলাপগন্ধ! 
তাকে বলছিনা, "আমি রোজই খাই, আয় বাছা আজ তুইও দু'মুঠ খা!" 
স্বাধীনতা মানে ওয়ান ডে ম্যাচ। তিরঙ্গা মানে সস্তা গুটখা।

শহিদ হইনি। শহিদস্মরণে টিভিতে করছি তর্কাতর্কি! 
গরিব বস্তি জ্বললে জ্বলুক, আমার কি তাতে? কিম্বা তোর কি? 
স্বাধীনতা মানে সাংসদভাতা, নিজেরই বাড়ানো ... সহজে লভ্য।
কানে হেডফোন ... ফ্রিতে রিংটোন, ফেসবুকে ভাব ... কটুকাটব্য...!

স্বাধীনতা মানে চাষের জমিতে বুলডোজারের রাষ্ট্রশক্তি।
অনলাইনের অবাধ সাট্টা। পাট্টা কাড়ার রক্তারক্তি।
পাসপোর্টের তৎকাল আছে, বিপিএল-এ নেই সে'সব ফান্ডা।
সংবিধানের সমানাধিকার আইনি ভাষায় বুলেট ... ডান্ডা ...

কবির কলম, ভালবাসবার স্বাধীনতা খুঁজে ছিন্নভিন্ন। 
দলিত মেয়ের স্বাধীনতা মাখে অপমান আর আগুনচিহ্ণ। 
চালাক ছেলেটা সফটওয়্যারের, অভাগীর ছেলে যায় সীমান্তে! 
হিসেব কিছুতে মিলতে চায়না, পোড়া এ'দেশের সকল প্রান্তে! 

স্বাধীনতা নয় কর্পোরেটের যত্নে সাজানো দেয়ালচিত্র। 
স্বাধীনতা হোক আগুন ফুলকি ... বাঁচার ইচ্ছে ... পূত পবিত্র। 
ভুলভুলাইয়া যাক মুছে যাক। স্বাধীনতা ভুল অর্থে আর না! 
হে স্বদেশ, তুমি শুনতে পাচ্ছো, একশ' কোটির সকল কান্না?