মঙ্গলবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১০

ফর্ম বনাম কনটেন্ট ~ অনামিকা

ফর্মে যদি ঘাটতি থাকে সেইটি ক্ষমার যোগ্য।
কনটেন্টের ঘাটতি যেটা, সেইটি কিন্তু রোগ গো!
ভুল ধরেছ বেশ করেছ। ভুল সে শুধু ফর্মে।
অল্পস্বল্প ভুল তো হবেই থাকলে কাজে কর্মে।
কিন্তু যখন প্রমাদ সেঁধোয় কনটেন্টের মধ্যে
ধ্বস্ত সময় চাইবে ফেরত ... যা নিয়েছিস শোধ দে!
শোধ কে দেবে? তোমরা তখন চতুর হাঁটায় চলায়
ফল খাচ্ছ বৃক্ষে উঠে ... কুড়োচ্ছ গাছতলায়।
কনটেন্টে ভেজাল তবু নিখুঁত থেকে ফর্মে,
একসঙ্গেই বিরাজ কর, জিরাফে আর ধর্মে!
যাদের জোরে সব ক্ষমতা তাদের রাখ প্রান্তে।
ভেতরদিকে ভাঙ্গন ছিল চাওনি সেটাও মানতে!
পরস্পরকে হারাও যেন ম্যাঞ্চেস্টার চেলসি।
তোমরা আমার জোনাল ... ডিসি ... চোখের মণি এলসি!
দশ আঙুলের মুক্তো প্রবাল মার্ক্সকে করে ঠাট্টা।
বড়দা খেলেন সুপারলোটো, ছোড়দা তুমুল সাট্টা।
বড়দা' খোঁজেন আবগারি মদ, চুল্লু শোঁকেন ছোড়দা।
আমার উঠোন দাপিয়ে বেড়ায় অসভ্য আস্পর্ধা।
মিডিয়াদের দোষ দিওনা। ওদের কাজই কেচ্ছা।
নিজেও তো কই সামলাওনি আত্মহনন ইচ্ছা।
নিজের পক্ষে তুলবে হাওয়া ওদের এমন গুণ নেই
বাতাস তোমায় ছাড়ছে তোমার উপার্জনের পুণ্যেই।
তোমার ভরসা করছি না আর। সাজছি নিজের বর্মে।
সামনে লড়াই, ফিরবো নিজেই কঠিনতম ফর্মে।