রবিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১০

অ্যাজেন্ডা ~ অনামিকা

ভোট চলে এল। আয় ছবিটা গোছাই।
যে করেই হোক ক'টা মৃতদেহ চাই।

তাপসী ... নন্দীগ্রাম নয় মোটে তাজা।
ঠান্ডা জিলিপি যায় কতবার ভাজা?
রাজারহাটের লোক বড়ই চতুর।
মিছিলেই আসছেনা, মরা বহুদূর!

আর বাকি যে ক'জন রোজদিন মরে,
সবই সিপিএম তারা, বলছে খবরে।
বুদ্ধিজীবীরা তাই বড় চুপচাপ।
সিপিএম মরলে কি কাঁদা যায় বাপ?

উসখুস করি রোজ। কী যে করি আমি!
চাইছি মরুক কিছু তৃণঅনুগামী।
হায় হায়, কী উপায় বলছে না কেহ,
কোথায় কীভাবে পাই ক'টা মৃতদেহ!

ভোটের যে কমিশন ... ভারি বদমাস।
এগোতেই চাইছেনা শেষ কয়মাস।
আসলে চাকর তারা, তবু জেদি বোকা।
আজ হবে, কাল হবে, দিয়ে যায় ধোঁকা।

মানছে না মিছে কথা, ভোটার গাধারা।
গণতন্ত্রে যে কেন বোকা বোকা ধারা
অযথা বহাল থাকে। কী হবে উপায়
জনগণ শেষমেস যদি বেঁকে যায়।

কল্যান পার্থরা তারাও কি আর
দেরি হলে রাজি হবে? শুধুই বিয়ার!
এ কেমন ককটেল? আর কতকাল
মাংস খাবে না তারা, শুধু ভাত ডাল?

ভুলে গেলি তোরা সব শ্বাপদশাবক?
দামাল বাছারা ... তোরা যে করেই হোক,
বোমা হোক ... গুলি হোক ... হোক ঘনঘটা ...
সংগ্রহ করে আন ডেডবডি ক'টা।

তারপর দেখ, আমি কি দেখাই খেল!
বনধ আর অবরোধ ... সকাল বিকেল।
ততদিনে ভোট, আর ভোট হলে পরে ...
কে না জানে আমি রাণী লাশ কাটা ঘরে!