সোমবার, ১৬ আগস্ট, ২০১০

সমান্তরাল ~ রজত

অনেক কিছুই এক নিমেষে লিখতে পারো
দিন-দুপুরে মেঘ নামানো বর্ষা-নারী
সবুজায়ন.... 'পুকুর বাঁচাও'....কিংবা শপথ
এক লাইনেই হাজার মাইল ... বিদেশ পাড়ি

শব্দকোষে-ই আঁকড়ে রাখো আয়ুধগুলো
লিখছ যত .... বাড়ছে মসীর খবরদারি
কাঙ্খিত সুখ- অসুখ এবং কাম-দাবানল
খিস্তি-খেউড় .... জঠর জ্বালা ... মীরার শাড়ি

বেশ লিখছ .... বেশ তো লেখো হিসেবনামা !!
দল বেঁধেছ কালনেমিদের আস্তাবলে
শ্রেণী-শোষণ ..... গরমাগরম তোমার খাতায়
স্বপ্ন দেখাও !! নাকি ভাঙো লেখার ছলে ??

অনেক কিছুই এক নিমেষে লিখতে পারো ......
পাহাড় .... নদী ... ধুসর বালি ... বাঁশের সাঁকো
জল আনতে চড়াই ভাঙা পঁচিশ মাইল
সেই পাহাড়ির ঘামের হিসেব খাতায় রাখো ??

আজকে তুমি শ্রমিক হলে .... কাল জেহাদী
মে-দিবসে বেশ লেখো হে বানানপটু !
কাজের মাসী চাইলে ছুটি এক রবিবার
কেন তোমার মুখ বেঁকে যায় দৃষ্টিকটু !!!

তোমার মীরা ... যে মেয়েটা খাতায় থাকে
যখন তখন উড়তে মেয়ের নেইকো জুড়ি
রোজের মেয়ের বেলায় কেন আকাশ ঢাকো ??
তবে কি ছাই মিথ্যে তোমার স্বপ্নঘুড়ি!!!

"পুকুর বাঁচাও" .... দিব্যি বিকোয় বইমেলাতে
ফ্ল্যাটবাড়িটাও কাঁপলো বোধহয় তোমার ভয়ে
আটের বারোয় আজ আর পুকুর দেয়না সাড়া
ব্যালকনি-তে গর্বিতা বউ কবির জয়ে ।

সবুজায়ন বাড়ছে কবির পকেট জোড়া
জবর খবর .... আসছে নতুন উপন্যাসে
একটা পাগল রাত্রে পড়ে পাতার পোষাক
দিনের বেলায় আগুন লাগায় টুসুক ঘাসে।

কবি..... এবং মানুষটা ঠিক সমান্তরাল
সরলরেখাও হয়ত মেলে অন্তমিলে !!!!
আমিও এক বুদ্ধুভুতুম সইশিকারী ....
ঝাঁপিয়ে কবির হরফ নিলাম আজ বিকেলে ।।