রবিবার, ৩১ জানুয়ারী, ২০১০

অরকুট কবি.... ~ সুকন্যা

অরকুট কবি আমি লিখে যাই পদ্য
অর্থহীন শব্দ শিখছি এই সদ্য.
গাছ তারা জল পাখী মিলেমিশে একাকার
হাত পা চোখ নাক একসাথে ছারখার.
anatomy করে ফেলি কবিতার লাইনে
শব্দগুলো চলে বামে,অর্থ তার ডাইনে.
নাই থাক তার মানে নাই থাক অর্থ
কবিতা আমি লিখি বাপু একদম যথার্থ.
কখনো কবিতা নিয়ে ভালবাসা হয়নি
লেখাগুলো তাই কারো মন ছুঁয়ে যায়নি.
অরকুটে এসে আমার বড় মনে সাধ হয়
আমিও লিখব কিছু, কবি কবি ভাব হয়.
যেই ভাবা সেই কাজ,লিখে ফেলি একরাশ
লেখা শেষে দেখি আমি কবিতার সর্বনাশ.
গাদাগাদা চিন্তা,এলোমেলো কিলবিল
অর্থ আর শব্দের কিছুই পাইনা মিল.
বোঝাতে চাই একমানে, হয়ে যায় অন্য
তবু আমি লিখবই, হব স্বনামধন্য.
নামডাক হবে খুব,হবে ছেলেবন্ধু
কবিতার আড়ালে প্রেমনদী সিন্ধু.
আমার পদ্য পড়ে পাঠকের প্রান যায়
ছেঁড়ে দে মা অনেক হল, পাগল হবার প্রায়.
ধুর,তোমরা বোঝনা কিছু কবিতার মর্ম
মন দিয়ে করে যাই লেখালেখি কর্ম.
এলোমেলো কথা সব, তালকাটা ছন্দ
মাতৃভাষা পালিয়ে বাঁচে, হাওয়াটা আজ মন্দ.
বানানভুলের লেখাগুলো সাবধানে পড়বেন
অরকুট কবি ভেবে মার্জনা করবেন.